রবিবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ০৬:০৪ অপরাহ্ন

সোনারগাঁও ইউনিভার্সিটির স্থায়ী ক্যাম্পাসের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন

দেশান্তর প্রতিবেদক
  • আপডেট টাইম : শনিবার, ২৫ জানুয়ারী, ২০২০
  • ৬১ বার পঠিত

দেশের অন্যতম বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় সোনারগাঁও ইউনিভার্সিটির (এসইউ) স্থায়ী ক্যাম্পাসের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয়েছে। স্থায়ী ক্যাম্পাস নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেন নারায়ণগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য ও সোনারগাঁও ইউনিভার্সিটির বোর্ড অব ট্রাস্টিজের সদস্য আলহাজ্ব নজরুল ইসলাম বাবু, এমপি।

শুক্রবার (২৪ জানুয়ারি) দুপুর ১২টায় রাজধানীর ঢাকা সিটি করপোরেশনের ৭৫ নম্বর ওয়ার্ডে দুই একর জমিতে বিশ্ববিদ্যালয়টির স্থায়ী ক্যাম্পাস নির্মাণের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয়।

এ সময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন—সোনারগাঁও ইউনিভার্সিটির অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা ও বোর্ড অব ট্রাস্টিজের সদস্য ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল আজিজ। ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন—বিশ্ববিদ্যালয়ের বোর্ড অব ট্রাস্টিজের সাধারণ সম্পাদক মো. আব্দুল আলিম, বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. মো. আবুল বাশার, ট্রেজারার অধ্যাপক মো. আল-আমিন মোল্লা, রেজিস্ট্রার এস এম নুরুল হুদা, বিজ্ঞান ও প্রকৌশল অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. এম এ মাবুদ, ব্যবসায় অনুষদের ডিন ও সহযোগী অধ্যাপক আবুল কালাম, মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ও সহযোগী অধ্যাপক মো. মোস্তফা হোসেন, আর্কিটেকচার বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ও সহকারী অধ্যাপক মোহাম্মদ ইউসুফ ইকবাল চৌধুরী, সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ও সহকারী অধ্যাপক মো. লুৎফর রহমান, টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ও সহকারী অধ্যাপক রেজাউল করিম, ফ্যাশন ডিজাইন অ্যান্ড টেকনোলজি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ও সহকারী অধ্যাপক মো. আহসান হাবিব, মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আলমগীর হোসেন, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক (ভারপ্রাপ্ত) মো. ওমর ফারুক মোল্লা, ছাত্র কল্যাণ উপদেষ্টা মো. শামসুল আলম, মানবসম্পদ বিভাগের পরিচালক মো. বেনী আমিন মোল্লা,  অর্থ ও হিসাব শাখার পরিচালক মো. মেজবাউল হোসাইন এবং সহকারী পরিচালক মাসুদুল আলম রিপন।

স্থানীয় ব্যক্তিদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে বোর্ড অব ট্রাস্টিজের সদস্য ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল আজিজ বলেন, আপনারা বিশেষ করে ওয়াসার প্লান থেকে এ পর্যন্ত রাস্তাটা করার জন্য আন্তরিকতার সঙ্গে সহযোগিতা করেছেন। আপনাদের সহযোগিতা না থাকলে এত দ্রুত এই রাস্তাটি করা সম্ভব হতো না। এজন্য আপনাদের প্রতি আমরা কৃতজ্ঞ। আপনাদের এলাকায় প্রতিষ্ঠানটি হচ্ছে, এটিকে আপনারা নিজেদের প্রতিষ্ঠান মনে করবেন এবং আশা করি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটি প্রতিষ্ঠিত হলে আপনাদের উন্নয়ন হবে। আপনাদের ছেলে-মেয়েরা এখানে পড়াশোনা করবে। তাই পরবর্তীতে আপনাদের এ সহযোগিতা অব্যাহত রাখার আহ্বান জানাচ্ছি।

তার বক্তব্যে সোনারগাঁও ইউনিভার্সিটির জাতীয় পর্যায়ে বিভিন্ন অর্জনের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের সকলের কাছে কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন তিনি। সোনারগাঁও ইউনিভার্সিটি ১ম সমাবর্তন অনুষ্ঠানের আয়োজনের অনুমোদন প্রদান করায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন এবং স্বল্প সময়ের প্রস্তুতিতে উক্ত আয়োজন সফলভাবে সম্পন্ন করার জন্য সকলের সহযোগিতা কামনা করেন বিশ্ববিদ্যালয়টির অন্যতম এ প্রতিষ্ঠাতা।

সোনারগাঁও ইউনিভার্সিটির স্থায়ী ক্যাম্পাসের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন

উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আবুল বাশার বলেন, আলহাজ্ব নজরুল ইসলাম বাবু সোনারগাঁও ইউনিভার্সিটির জন্য যা করেছেন সেটা আমরা সবাই জানি। তবে আজকের এই আয়োজনটি জরুরি ছিল।

তিনি বলেন, এই এলাকার যত লোক আছেন, আমি আশা করি আপনাদের সহযোগিতা সবসময় পাব। আপনাদের সন্তানরা বড় হবে, তারাও লেখাপড়া শিখবে, এখানে সুযোগ পাবে।

স্থানীয় ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. আনোয়ার হোসেন বলেন, এই এলাকায় সোনারগাঁও ইউনিভার্সিটির বদৌলতে যে উন্নয়ন কর্মকাণ্ড শুরু হয়েছে এতে আমরা গর্বিত। ইউনিভার্সিটি নির্মাণের কারণে আমাদের রাস্তাঘাট উন্নত হয়েছে। আমাদের এলাকার এই উন্নয়ন ধারা অব্যাহত রাখতে প্রধান অতিথির সহযোগিতা কামনা করছি।

প্রধান অতিথি আলহাজ্ব নজরুল ইসলাম বাবু বলেন, আমাদের একটি স্বপ্ন রয়েছে, সে স্বপ্ন নিয়েই এখানে আসা। স্বপ্নটি বাস্তবায়নের জন্য হয়তো কিছু সময় লাগবে। আমি একটি বিষয় আজকে বলে যেতে পারি, সোনারগাঁও ইউনিভার্সিটি যদি সত্যিকার অর্থে কোনো এলাকাকে আলোকিত করে তবে এ এলাকাকেই আলোকিত করবে।

তিনি বলেন, এই এলাকার মানুষ সৌভাগ্যবান, আমি মনে করি পিছিয়ে থাকা অনুন্নত এই এলাকার জন্য সোনারগাঁও ইউনিভার্সিটি আল্লাহর রহমত হিসেবে এসেছে। এটাকে কেন্দ্র করে অনেক প্রতিষ্ঠান এখানে গড়ে উঠবে। যদি এ জায়গাগুলো পড়ে থাকত তাহলে হয়তো ইন্ডাস্ট্রি হতো, গার্মেন্টস হতো অথবা নানা রকম উৎপাদনমুখী প্রতিষ্ঠান হতো। তবে ইউনিভার্সিটি হওয়ায় মানুষকে মানুষ হিসেবে সত্যিকার রূপ দেওয়ার প্রতিষ্ঠান হিসেবে দাঁড়িয়েছে। যে প্রতিষ্ঠানটি সারা বিশ্বে বাংলাদেশকে প্রতিনিধিত্ব করবে।

আন্তর্জাতিক মানের শিক্ষা অর্জনের মাধ্যমে দেশের শিক্ষার্থীরা যেন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে সে লক্ষ্য অর্জনের জন্য সোনারগাঁও ইউনিভার্সিটি কর্তৃপক্ষ কাজ করে যাচ্ছে। অস্থায়ী ক্যাম্পাস হতে স্থায়ী ক্যাম্পাসে খুব দ্রুততম সময়ের মধ্যে শিক্ষা কার্যক্রম শুরু করবে বলে আশা ব্যক্ত করেন তিনি।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
© All rights reserved © 2019 deshantortv

This site Development & Maintenance by Fahim Shaon

themebaonlic1718051743